কম্পিউটার শিক্ষা সবার জন্য

আজ বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এই এগিয়ে যাওয়ার পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান হল তথ্য প্রযুক্তি। তথ্য প্রযুক্তির অন্যতম একটি অবদান হলো কম্পিউটার। বাংলাদেশের বেশিরভাগ শিক্ষিত বেকার আছেন যাদেরকে কম্পিউটারের বিভিন্ন সর্টকাট কোর্সের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ দিয়ে বেকারত্ব দুর করানো সম্ভব। আমাদের প্রায় সকলের জানা আছে যে, কম্পিউটার একটি গণনাকারি যন্ত্র হিসেবে আবিষ্কৃত, তবে আজ বিশ্বের প্রতিটি কাজে কম্পিউটার ব্যবহার হয়ে থাকে। যেমন- ব্যাংক-বীমা, অফিস-আদালত, শিক্ষা, চিকিৎসা ক্ষেত্রে, প্রচার মাধ্যম, অনলাইনের যাবতিয় কাজ, গ্রাফিক্স ডিজাইন ও চিত্ত বিনোদন ইত্যাদি। এসকল কর্ম ক্ষেত্রে একজন দক্ষ কম্পিউটার অপারেটর প্রয়োজন হয়ে থাকে। এছাড়াও একজন কম্পিউটারের উপর দক্ষ লোক নিজে নিজের কর্মসংস্থান তৈরি করে কাজ করতে পারবেন।

  • শিক্ষা ক্ষেত্রেঃ শিশু শিক্ষা থেকে উচ্চ শিক্ষা পর্যন্ত কম্পিউটারের ব্যবহার ব্যাপক। একটি ঝরেপড়া শিক্ষার্থীকে শ্রেণি কক্ষে মালটিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে উৎসাহ উদ্দীপনা দিয়ে বিদ্যালয় মুখি করে তুলতে পারে। পাঠ্য বইয়ের পাশা-পাশি প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে বিভিন্ন আলোক চিত্র তুলেধরা হলে, ছাত্র-ছাত্রীরা পাঠ সম্পর্কে সহজে ধারণা পেয়ে থাকে। উচ্চ শিক্ষায় কম্পিউটার ব্যবহার করে বিশ্ব-বিখ্যাত লেখকের বই মুহুর্তের মধ্যে পাওয়া যায়, যা আমাদের জ্ঞানের রাজ্য বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। এসকল কাজের জন্য প্রয়োজন কম্পিউটারের বেসিক ধারণা (এম এস ওয়ার্ড, এম এস এক্সেল, এম এস পাওয়ারপয়েন্ট এবং ইন্টারনেট ব্রাউজিং) জানা থাকতে হবে।
  • চিকিৎসা ক্ষেত্রেঃ চিকিৎসার ক্ষেত্রে কিম্পিউটার বহুমুখি অবদানর রেখেছে। রোবটিক্স সার্জারি, ঔষধ তৈরি, রোগ নির্ণয় ও অনলাইন চিকিৎসা সেবা (টেলি হেলথ টেলি মেটিসিন) ইত্যাদি কাজে কম্পিউটার ব্যবহার হচ্ছে।

মোহাম্মদ আবু তৈয়ব

উদ্যোক্তা

সমুদ্র সৈকত সাব পোস্ট অফিস

বাহারছড়া, কক্সবাজার-৪৭০০

মোবাই: 01819444754

মন্তব্য


সাম্প্রতিক পোস্ট

Contact
পরিকল্পনায়

বাস্তবায়নে
Imagr
কারিগরি সহায়তায়
Imagr